শূন্য থেকে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা পর্যন্ত│Preparation Of Primary Teacher Exam

প্রস্তুতি যদি গোছানো হয় ,স্টাডি  পরিকল্পনা যদি ঠিক থাকে তাহলে হাজার হাজার প্রার্থীর মধ্যেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে নিজেকে এগিয়ে রাখা সম্ভব।সময় আপনার কম থাকলে ও যদি তার যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারেন তাহলে আপনার দ্বারা ও প্রাথমিক শিক্ষক  হওয়া সম্ভব।তবে প্রাথমিক শিক্ষক  নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার  জন্য পরিশ্রমের পাশাপাশি কিছু টেকনিক অবলম্বন করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

শুধু পরিশ্রম করলেই যদি সবকিছু হত তাহলে গাধাকেই বলা হত বনের রাজা।কাজেই পরিশ্রমের সাথে কৌশলের সমন্বয়েই যে কোন কাজে সাফল্য পাওয়া সম্ভব।আজকের পোস্টে আমি সেই নির্দেশনাটিই দেওয়ার চেষ্টা করব।তবে যারা পরিশ্রম করতে পারবেন না বা কোন শর্টকাট ওয়ে খুজেন সফল হওয়ার জন্য তাদেরকে বলি এ পোস্ট আপনার কোন কাজে আসবে না।আপনি এখনি স্কিপ করতে পারেন এবং এখান থেকেই।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায়  ২ ধরনের পরীক্ষার্থী থাকেন, তাহলে দুই ধরনের পরীক্ষার্থীর প্রস্তুতি দুই ধরনের হওয়া উচিত। যেমন সব রোগের জন্য কেবল নাপা খেলে কাজ হবে না; ঠিক একইভাবে সবার প্রস্তুতির স্টাইল একই রকম হলে কাজ না-ও হতে পারে।
১.  প্রাথমিকে এ ধরনের পরীক্ষার্থীর একটি হলো- একেবারে নতুন কিংবা আগে পরীক্ষা দিয়েছেন ঠিকই কিন্তু বইয়ে হাত দেন নি।
২. আরেক ধরনের পরীক্ষার্থী আছেন, যারা এর আগেও পরীক্ষা দিয়েছেন। মানে, অভিজ্ঞ বা কিছুটা অভিজ্ঞ।
এখন প্রথমে আসি যারা একেবারে নতুন অথবা যারা নতুন করে সবকিছু শুরু করতে চাচ্ছেন।তারা কিভাবে প্রস্তুতি শুরু করবেন। যারা এবার প্রথম পরীক্ষা দেবেন, তারা হয়তো বুঝে উঠতে পারছেন না- ঠিক কোথা থেকে কীভাবে #প্রস্তুতি শুরু করবেন ?

হয়তো ভাবছেন, আগে তো তেমন কিছু পড়িনি, এখন কি ভালো করা সম্ভব?
#প্রকৃতপক্ষে, হাতে এখনো যে পরিমাণ সময় আছে, পরিকল্পনামাফিক পড়লে, এখনো ভালো করা সম্ভব। তো আসুন জেনে নেওয়া যাক, কীভাবে শূন্য থেকে প্রস্তুতি শুরু করবেন—
#ধাপ-১: প্রথমে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার বিগত সালের প্রশ্নগুলো ভালোভাবে দেখুন এবং পড়ুন। প্রাথমিকে কী ধরনের প্রশ্ন হয় ধারণা পেয়ে যাবেন এবং বিগত সালের প্রশ্ন থেকে অনেক কমনও পাবেন। বিগত সালের প্রশ্নগুলো ব্যাখ্যাসহ পড়ুন। হাতে বেশি সময় না থাকলে অত্যন্ত ২০১৮ এবং ২০১৯ সালের প্রশ্নসমুহ ব্যাখ্যাসহ পড়ুন। কারণ এগুলো আগের প্রশ্নগুলোর চেয়ে একটু ভিন্ন।

ভিন্ন এ কারণে বলছি আগে সাধারণত প্রত্যেকটি বিষয়েরই নির্দিষ্ট কিছু টপিক থেকে #জোড়ায় জোড়ায় প্রশ্ন হত।কিন্তু এখন সেই ধারা অব্যাহত নেই।এখন গড়পড়তা সব টপিকেই আপনাকে হাত দিতে হবে।তবে বিগত সালের প্রশ্ন পড়লে আপনি বুঝতে পারবেন কোন টপিকগুলোর একেবারেই গভীরে যেতে হবে আর কোন টপিকগুলোর উপর মৌলিক ধারণা রাখলেই চলবে।

এর জন্য প্রাইমারি নিয়োগ গাইড থেকে বিগত সালের প্রশ্ন  পড়তে পারেন।তাছাড়া আপনার বেসিক যদি ভাল হয় আমি বলব যে কোন একটা জব সলিউশন  আগাগোড়া পড়ে নিতে।এতে করে চাকরির পরীক্ষায়  কি ধরনের ব্যতিক্রমী প্রশ্ন হয় তার সুস্পষ্ট ধারণা পেয়ে যাবেন।তবে এতে বেশী সময়ক্ষেপণ করা যাবে না।জাস্ট শুধু ধারণা নেওয়ার জন্য পড়বেন।পরবর্তীতে এগুলো নখদর্পণে নেওয়ার চেষ্টা করবেন।

ধাপ-২: এ পর্যায়ে আপনি আপনার দূর্বলতা চিহ্নিত করবেন।প্রয়োজনে একটি নোট করে নিবেন যে কোন টপিকগুলোতে আপনি বেশি দূর্বল ।দূর্বলতা চিহ্নিত করে এবার আসবে সেগুলোতে সক্ষমতা অর্জন করার পালা।এজন্য বিষয়ভিত্তিক বই হাতে নিবেন।যেমন
বাংলা,গণিত,ইংরেজি।এ তিনটি বই থেকে আপনি আপনার বেসিক মজবুত করবেন।

এজন্য অধিক দূর্বল টপিকগুলোর জন্য বাজারে প্রচলিত গাইড বইয়ের পাশাপাশি  বাংলার জন্য নবম-দশম শ্রেণির বাংলা ব্যাকরণ  এবং ভাল উচ্চতর বাংলা ব্যাকরণ ,ইংরেজির জন্য Advanced grammer ,গণিতের জন্য ৫ম শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণির বোর্ড বই থেকে ডিটেইলস ধারণা নিয়ে টপিকগুলো সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা নিবেন।

ধাপ-৩: এরপর বাজার থেকে যেকোনো ভালো সিরিজের (যেমন এমপিথ্রি/প্রফেসর’স/অ্যাসিওরেন্স/ওরাকল)  আলাদা বিষয়ভিত্তিক বই পড়তে হবে। সিলেবাসের সাথে মিল রেখে টপিকগুলো পড়ে ফেলুন। গুরুত্বপূর্ণ টপিক বা অধ্যায়ের ওপর বেশি জোর দিন। বিশেষত যে টপিক বা অধ্যায় থেকে প্রায় প্রতিবার প্রশ্ন আছে, সেই টপিক বা অধ্যায়গুলো।

এখানে বাংলার জন্য আমার কাছে এমপিথ্রি / অগ্রদূত টাই বেস্ট মনে হয়।গণিতের জন্য ”সোহাগ”স ম্যাথ এনালাইসিস” বইটি পড়ুন।কারণ প্রাইমারির উপযোগী করে এখন পর্যন্ত কোন বিষয়ভিত্তিক বই বাজারে নাই।তাই প্রাইমারির জন্য হলে এ গণিত বইটি পড়ুন।অধিক উপকৃত হবেন।ইংরেজির জন্য ও এমপিথ্রি/প্রফেসর;স কমপিটিটিভ এক্সাম বইটি বেস্ট।
#ধাপ-৪: এরপর বিগত সালের বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষা থেকে যেহেতু অনেক প্রশ্ন রিপিট হয়, সেজন্য জব সলিউশন পড়ুন।

এখানে বিগত সালের বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষার ব্যাখ্যাসহ সমাধান পাবেন। এ ক্ষেত্রে #প্রফেসর’স জব সলিউশন বা ওরাকল জব সলিউশন যেকোনো একটি ফলো করতে পারেন।জব সলিউশন থেকে প্রাইমারি নিয়োগ পরীক্ষায় প্রায় ৭০ থেকে ৮০ ভাগ প্রশ্ন কমন পাবেন।জব সলিউশন শতভাগ কমপ্লিট করার জন্য আমার জব সলিউশন স্টাডি সংক্রান্ত পোস্টটি দেখতে পারেন অথবা আপনার নিজস্ব পদ্ধতি অবলম্বন করুন যেভাবে আপনি বইটি শতভাগ নিয়ন্ত্রণে নিতে পারবেন বলে মনে করেন।মোদ্দাকথা হল নিজস্ব পদ্ধতিই সবচেয়ে বেশি কার্যকরী।কারণ ব্রেইন এতে অনেক বেশী স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে।

 

Check Also

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের সকল বিজ্ঞান প্রশ্ন সমাধান একসাথে পিডিএফ ডাউনলোড করুন

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের সকল বিজ্ঞান প্রশ্ন সমাধান একসাথে পিডিএফ ডাউনলোড করুন আপনি কি প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *