মক্কা নগরী বাদে সৌদিতে কারফিউ সম্পূর্ণ তুলে নেওয়া হচ্ছে

আমাদের বাণী ডেস্ক, ঢাকা;  করোনাভাইরাস ঠেকাতে জারি করা লকডাউন শিথিল করতে যাচ্ছে সৌদি আরব। তিন ধাপে দেশটি চলমান কারফিউর কড়াকড়ি শিথিল করার পরিকল্পনা করেছে। সে অনুযায়ী, আগামী ২১ জুন থেকে পবিত্র মক্কা নগরী বাদে সারা দেশের কারফিউ সম্পূর্ণ তুলে নেওয়া হবে। সৌদি প্রেস এজেন্সির বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স আজ মঙ্গলবার এ খবর জানিয়েছে।

তবে লকডাউন শিথিল করা হলেও হজ ও ওমরাহ পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিতই থাকছে।

প্রথম ধাপে আগামী বৃহস্পতিবার (২৮ মে) থেকে ৩০ মে পর্যন্ত বর্তমানে জারি থাকা ২৪ ঘণ্টার কারফিউর পরিবর্তে বিকেল ৩টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কারফিউ বলবৎ থাকবে। এসময় শহর ও অঞ্চলগুলোতে চলাচল করা যাবে বলেও জানানো হয়। এ ছাড়া ব্যবসা-বাণিজ্য ও শপিং মল খোলারও অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

  • আগামী ৩১ মে রবিবার থেকে মক্কা বাদে সব এলাকায় কারফিউ শিথিল করা হবে বলে জানিয়েছে দেশটির সরকার। এ ছাড়া শহর ও অঞ্চলগুলোতে চলাচলের অনুমতি দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়। প্রতিবেদনে আরো জানানো হয়, আগামী রোববার পর্যন্ত সব এলাকায় বিকাল ৩টা থেকে পরদিন সকাল ৬টা পর্যন্ত কারফিউ বলবৎ থাকবে। এরপর থেকে সময় পরিবর্তন করে রাত ৮টা থেকে পরদিন সকাল ৬টা পর্যন্ত করা হচ্ছে।

এ ছাড়া, আগামী ২১ জুন দেশটির সব এলাকায় কারফিউ তুলে নেওয়া হবে। তবে মক্কায় মসজিদে নামাজ আদায়ের অনুমতি এখনই মিলছে না রয়টার্সের বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

এর আগ পর্যন্ত সামাজিক দূরত্বের নির্দেশনা মেনে চলতে হবে এবং ৫০ জনের বেশি মানুষের সমাগমের নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

  • এদিকে, মন্ত্রণালয়, সরকারি সংস্থা ও বেসরকারি কোম্পানিগুলোতে প্রবেশ ও তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক কার্যক্রম চালুর অনুমতি দিয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। পাইকারি ও খুচরা দোকানসহ মল ও ক্যাফে চালু করার অনুমতিও দেওয়া হয়। 

তবে, বিউটি সেলুন, বারবারশপ, খেলাধুলার ক্লাব, বিনোদন কেন্দ্র ও সিনেমাহলসহ যেসব ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্বের নির্দেশনা মেনে চলা কঠিন, সেসব ক্ষেত্রগুলো বন্ধ থাকবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ওমরাহ ও আন্তর্জাতিক ফ্লাইটগুলো স্থগিত থাকবে বলেও জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্ত হয় গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে। তবে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাস ক্রমে গোটা বিশ্বকে বিপর্যস্ত করে দিয়েছে। চীন পরিস্থিতি অনেকটাই সামাল দিয়ে উঠলেও এখন মারাত্মকভাবে ভুগছে ইউরোপ-আমেরিকা-এশিয়াসহ বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চল। পৃথিবীর ১২০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া এ মারণ ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫ লাখ ১৩ হাজারেরও বেশি মানুষ। মৃতের সংখ্যা তিন লাখ ৪৭ হাজার প্রায়। তবে সাড়ে ২৩ লাখের বেশি রোগী ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ।

আমাদের বাণী ডট কম/২৬ মে ২০২০/সিসিপি 

Check Also

ভারতে কোভিড হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ড: নিহত ৫

ঢাকাঃ ভারতে একটি কোভিড হাসপাতালে আগুন লেগে ৫ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। দগ্ধ হয়েছেন আরও অনেকেই। …