কাজী নজরুল ইসলাম

কাজী নজরুল ইসলাম

⏺️জন্মঃ ২৪ মে, ১৮৯৯
➡️বাংলাঃ ১১ই জ্যৈষ্ঠ ১৩০৬

➡️স্থানঃ চুরুলিয়া, বেঙ্গল প্রেসিডেন্সি, ব্রিটিশ রাজ (বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গ)

⏺️মৃত্যুঃ ২৯ আগস্ট, ১৯৭৬
➡️বাংলাঃ ১২ই ভাদ্র ১৩৮৩
➡️স্থানঃ ঢাকা, বাংলাদেশ

➡️ পিতাঃ কাজী ফকির আহমদ।
➡️মাতাঃ জাহেদা খাতুন

⏺️স্ত্রীঃ ১) নার্গিস আসার খানমঃ নার্গিস আসার খানম (সৈয়দা খাতুন) বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামের প্রথম স্ত্রী। কবি তার ছায়ানট, পূবের হাওয়া, চক্রবাক কাব্য গ্রন্থের অনেক কবিতা নার্গিসকে কেন্দ্র করে রচনা করেন।
➡️ছায়ানটের মোট ৫০ টি কবিতার মধ্যে বেদনা অভিমান, অবেলায়, হার মানা হার, অনাদৃতা, হারামনি, মানস বধু, বিদায় বেলায়, পাপড়ি খেলা ও বিধূর পথিক সহ মোট নয়টি কবিতা নার্গিসকে কেন্দ্র করে লেখেন।

➡️২) প্রমিলা দেবীঃ কাজী নজরুল ইসলামের দ্বিতীয় স্ত্রী।

➡️৩) বেগম ফজিলাতুন্নেসাঃ কাজী নজরুল ইসলামের তৃতীয় স্ত্রী।

➡️কাজী নজরুল ইসলাম বাংলা ভাষার অন্যতম সাহিত্যিক, দেশপ্রেমী এবং বাংলাদেশের জাতীয় কবি।

➡️তাঁর কবিতায় বিদ্রোহী দৃষ্টিভঙ্গির কারণে তাঁকে বিদ্রোহী কবি নামে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

➡️মধ্যবয়সে তিনি পিক্‌স ডিজিজে আক্রান্ত হন।

➡️বাংলাদেশ সরকারের আমন্ত্রণে ১৯৭২ সালে তিনি সপরিবারে ঢাকা আসেন।এসময় তাকে বাংলাদেশের জাতীয়তা প্রদান করা হয়।

⏺️গুরত্বপূর্ণ টিপসঃ
➡️নজরুল রচিত উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ হচ্ছে অগ্নিবীণা (কবির প্রথম কাব্যগ্রন্থ),
সঞ্চিতা,
মরুভাস্কর,
চিত্তনামা,
ছায়ানট,
বিষের বাশী,
সন্ধ্যা,
দোলন চাপা,
জিন্জির,
চক্রবাক,
প্রলয়শিখা,
ফণিমনসা,
সর্বহারা,
সিন্ধু হিন্দোল,
ভাঙ্গার গান,
ঝিঙে ফুল,
সাম্যবাদী।

➡️লেখকের উল্লেখযোগ্য গল্পগ্রন্থ হচ্ছে ব্যথার দান (প্রথম প্রকাশিত গ্রন্থ),
রিক্তের বেদন,
শিউলিমালা।

➡️তার রচিত উপন্যাস হচ্ছে বাধনহারা (প্রথম উপন্যাস),
মৃত্যুক্ষুধা,
কুহেলিকা।

➡️তার রচিত নাট্যগ্রন্থ হচ্ছে ঝিলিমিলি (প্রথম নাট্যগ্রন্থ),
পুতুলের বিয়ে,
আলেয়া,
মধুমালা।

➡️লেখকের উল্লেখযোগ্য প্রবন্ধগ্রন্থ হচ্ছে যুগবাণী (প্রথম প্রবন্ধগ্রন্থ),
রাজবন্দীর জবানবন্দী,
দুর্দিনের যাত্রী।

➡️কবিতা
অগ্নিবীণা (কবিতা) ১৯২২

সঞ্চিতা (কবিতা সংকলন) ১৯২৫

ফনীমনসা (কবিতা) ১৯২৭

চক্রবাক (কবিতা) ১৯২৯

সাতভাই চম্পা (কবিতা) ১৯৩৩

নির্ঝর (কবিতা) ১৯৩৯

নতুন চাঁদ (কবিতা) ১৯৩৯

মরুভাস্কর (কবিতা) ১৯৫১

সঞ্চয়ন (কবিতা সংকলন) ১৯৫৫

➡️ইসলামী কবিতা (কবিতা সংকলন) ১৯৮২

➡️কবিতা ও সংগীত
দোলন-চাঁপা (কবিতা এবং গান) ১৯২৩

বিষের বাঁশি (কবিতা এবং গান) ১৯২৪

ভাঙ্গার গান (কবিতা এবং গান) ১৯২৪

ছায়ানট (কবিতা এবং গান) ১৯২৫

চিত্তনামা (কবিতা এবং গান) ১৯২৫

সাম্যবাদী (কবিতা এবং গান) ১৯২৫

পুবের হাওয়া (কবিতা এবং গান) ১৯২৬

সর্বহারা (কবিতা এবং গান) ১৯২৬

সিন্ধু হিন্দোল (কবিতা এবং গান) ১৯২৭

জিঞ্জীর (কবিতা এবং গান) ১৯২৮

প্রলয় শিখা (কবিতা এবং গান) ১৯৩০

শেষ সওগাত (কবিতা এবং গান) ১৯৫৮

➡️সংগীত
বুলবুল (গান) ১৯২৮

সন্ধ্যা (গান) ১৯২৯

চোখের চাতক (গান) ১৯২৯

নজরুল গীতিকা (গান সংগ্রহ) ১৯৩০

নজরুল স্বরলিপি (স্বরলিপি) ১৯৩১

চন্দ্রবিন্দু (গান) ১৯৩১

সুরসাকী (গান) ১৯৩২

বনগীতি (গান) ১৯৩১

জুলফিকার (গান) ১৯৩১

গুল বাগিচা (গান) ১৯৩৩

গীতি শতদল (গান) ১৯৩৪

সুর মুকুর (স্বরলিপি) ১৯৩৪

গানের মালা (গান) ১৯৩৪

স্বরলিপি (স্বরলিপি) ১৯৪৯

বুলবুল দ্বিতীয় ভাগ (গান) ১৯৫২

রাঙ্গা জবা (শ্যামা সংগীত) ১৯৬৬

➡️ছোট গল্প
ব্যাথার দান (ছোট গল্প) ১৯২২

রিক্তের বেদন (ছোট গল্প) ১৯২৫

শিউলি মালা (গল্প) ১৯৩১

➡️উপন্যাস
বাঁধন হারা (উপন্যাস) ১৯২৭

মৃত্যুক্ষুধা (উপন্যাস) ১৯৩০

কুহেলিকা (উপন্যাস) ১৯৩১

➡️নাটক
ঝিলিমিলি (নাটক) ১৯৩০

আলেয়া (গীতিনাট্য) ১৯৩১

পুতুলের বিয়ে (কিশোর নাটক) ১৯৩৩

মধুমালা (গীতিনাট্য) ১৯৬০

ঝড় (কিশোর কাব্য-নাটক) ১৯৬০

পিলে পটকা পুতুলের বিয়ে (কিশোর কাব্য-নাটক) ১৯৬৪

➡️প্রবন্ধ এবং নিবন্ধ
যুগবানী (প্রবন্ধ) ১৯২৬

ঝিঙ্গে ফুল (প্রবন্ধ) ১৯২৬

দুর্দিনের যাত্রী (প্রবন্ধ) ১৯২৬

রুদ্র মঙ্গল (প্রবন্ধ) ১৯২৭

ধুমকেতু (প্রবন্ধ) ১৯৬১

➡️অনুবাদ এবং বিবিধ[সম্পাদনা] রাজবন্দীর জবানবন্দী (গান) ১৯২৩

দিওয়ানে হাফিজ (অনুবাদ) ১৯৩০

কাব্যে আমপারা (অনুবাদ) ১৯৩৩

মক্তব সাহিত্য (মক্তবের পাঠ্যবই) ১৯৩৫

রুবাইয়াতে ওমর খৈয়াম (অনুবাদ) ১৯৫৮

নজরুল রচনাবলী (ভলিউম ১-৪,বাংলা একাডেমী)১৯৯৩

➡️সঙ্গীত গ্রন্থাবলী
বুলবুল (১ম খন্ড-১৯২৮, ২য় খন্ড-১৯৫২)

চোখের চাতক (১৯২৯)

চন্দ্রবিন্দু (১৯৪৬)

নজরুল গীতিকা (১৯৩০)

নজরুল স্বরলিপি (১৯৩১)

সুরসাকী (১৯৩১)

জুলফিকার (১৯৩২)

বনগীতি (১৯৩২)

গুলবাগিচা (১৯৩৩)

গীতিশতদল (১৯৩৪)

সুরলিপি (১৯৩৪)

সুর-মুকুর (১৯৩৪)

গানের মালা (১৯৩৪)

⏺️গুরুত্বপূর্ণ কিছু প্রশ্ন
প্রশ্নঃ কাজী নজরুল কবে, কোথায়
জন্মগ্রহণ
করেন?
উত্তরঃ ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৩০৬ বঙ্গাব্দ
(২৪ মে ১৮৯৯) খ্রি:) চুরুলিয়া গ্রাম, আসানসোল,
বর্ধমান পশ্চিমবঙ্গ।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুলের পিতার নাম
কী?
উত্তরঃ কাজী ফকির আহমদ।
প্রশ্নঃ নজরুলের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার বর্ণনা দাও।
উত্তরঃ দশ বছর বয়সে গ্রামের মক্তব থেকে নিম্ন
প্রাইমারী পরীক্ষায় উত্তীর্ণ (১৯০৯) হন। এরপর
১৯১৪ সালের ত্রিশালের দরিরামপুর স্কুলে, ১৯১৫ সালে পশ্চিমবঙ্গের রানীগঞ্জ শিয়ারশোল
রাজস্কুলে অষ্টম শ্রেণীতে ভর্তি হন। এই স্কুল
থেকে ১৯১৭ সালে দশম শ্রেণী প্রি-টেস্ট পরীক্ষার
সময় লেখাপড়া অসমাপ্ত রেখে তিনি সেনাবাহিনীতে যোগ দেন।

প্রশ্নঃ বার বছর বয়সে তিনি কোথায়
যোগ দেন?
উত্তরঃ লেটোর দলে এবং দলে ‘পালা
গান’ রচনা করেন।

প্রশ্নঃ নজরুল বাংলা সাহিত্যে কী
নামে পরিচিত?
উত্তরঃ বিদ্রোহী কবি।

প্রশ্নঃ বাংলাদেশের জাতীয় কবি
কে?
উত্তরঃ কাজী নজরুল ইসলাম।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল বাংলাদেশের কোন
সঙ্গীতের রচয়িতা?
উত্তরঃ রণসঙ্গীত।

প্রশ্নঃ রণসঙ্গীত হিসাবে মূল কবিতাটির কত চরণ গৃহীত?
উত্তরঃ ২১ চরণ।

প্রশ্নঃ রণসঙ্গীত কী শিরোনামে
সর্বপ্রথম কোন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?
উত্তরঃ নতুনের গান শিরোনামে ঢাকার শিখা পত্রিকায় ১৯২৮ (১৩৩৫ বঙ্গাব্দে) বার্ষিক সংখ্যায় প্রকাশিত হয়।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুলের কোন গ্রন্থে এই
সঙ্গীত অন্তর্ভুক্ত আছে?
উত্তরঃ সন্ধ্যা কাব্য গ্রন্থে।

প্রশ্নঃ ‘বিদ্রোহী’ কবিতা প্রথম
কোথায় প্রকাশিত হয়?
উত্তরঃ ‘সাপ্তাহিক বিজলী’র ২২ পৌষ (১৩২৮) সংখ্যায়।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল কোন দৈনিক
পত্রিকার যুগ্ন সম্পাদক ছিলেন?
উত্তরঃ ‘সান্ধ্য দৈনিক নবযুগ’ (১৯২০)-এর।

প্রশ্নঃ এই পত্রিকার সঙ্গে আর কোন
দুজন রাজনৈতিক নেতা যুক্ত ছিলেন?
উত্তরঃ কমরেড মুজাফফর আহমদ ও
শেরে বাংলা ফজলুল হক।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুলের সম্পদনায় কোন
অর্ধসাপ্তাহিক পত্রিকা বের হত?
উত্তরঃ ‘ধূমকেতু’ (১৯২২)।

প্রশ্নঃ ধূমকেতু পত্রিকায় রবীন্দ্রনাথের কোন বাণী ছাপা হয়?
উত্তরঃ ‘আয় চলে আয়, রে ধূমকেতু/আঁধারে বাঁধ অগ্নিসেতু-’।

প্রশ্নঃ কোন কবিতা প্রকাশিত হলে তিনি গ্রেফতার হন?
উত্তরঃ ধূমকেতু’র পূজা সংখ্যায় (১৯২২) ‘আনন্দময়ীর আগমনে’।

প্রশ্নঃ রবীন্দ্রনাথ তাঁর কোন গীতিনাট্য নজরুলকে উৎসর্গ করেন?
উত্তরঃ বসন্ত।

প্রশ্নঃ হুগলি জেলে কর্মকর্তাদের অন্যায় আচরণের বিরুদ্ধে নজরুল অনশন করলে রবীন্দ্রনাথ
নজরুলকে কী লিখে টেলিগ্রাফ পাঠান?
উত্তরঃ Give up hunger strike. Our
literature claims you.

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল জেল থেকে মুক্তি
পান কবে?
উত্তরঃ ১৯২৩-এর ১৫ অক্টোবর।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলাম কংগ্রেসের
রাজনীতিতে যোগ দেন কখন?
উত্তরঃ ১৯২৫-এ ফরিদপুর কংগ্রেসের প্রাদেশিক
সম্মেলনে।

প্রশ্নঃ নজরুল সম্পাদিত ‘লাঙ্গল’ পত্রিকার প্রকাশকাল কত?
উত্তরঃ ১৯২৫ সাল।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুলকে জাতীয় সংবর্ধনা দেয়া হয় কোথায় এবং কখন?
উত্তরঃ ১৯২৯-এর ১৫ ডিসেম্বর কলকাতার
অ্যালবার্ট হলে।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত গ্রন্থের নাম কী?
উত্তরঃ ব্যথার দান (প্রকাশ: ফেব্রুয়ারি ১৯২২)।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত রচনার নাম কী?
উত্তরঃ বাউন্ডেলের আত্মকাহিনী (প্রকাশ: জ্যৈষ্ঠ
১৩২৬; সওগাত)।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত
কবিতার নাম কী?
উত্তরঃ মুক্তি (প্রকাশ: শ্রাবণ ১৩২৬)।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত
গল্পের নাম কী?
উত্তরঃ বাউন্ডেলের আত্মকাহিনী (প্রকাশ: জ্যৈষ্ঠ ১৩২৬)।
প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত গল্পগ্রন্থের নাম কী?
উত্তরঃ ব্যথার দান (প্রকাশ: ফেব্রুয়ারি ১৯২২)।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থের নাম কী?
উত্তরঃ অগ্নি-বীণা (সেপ্টেম্বর,১৯২২)।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত উপন্যাসের নাম কি?
উত্তরঃ বাঁধনহারা (১৯২৭)।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত প্রবন্ধের নাম
কী?
উত্তরঃ তুর্কমহিলার ঘোমটা খোলা
(প্রকাশ: কার্তিক ১৩২৬)।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রবন্ধগ্রন্থ
কোনটি?
উত্তরঃ যুগবাণী (অক্টোবর ১৯২২)।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম প্রকাশিত নাটকের নাম কী?
উত্তরঃ ঝিলিমিলি (১৩৩৪, নওরোজ)।

প্রশ্নঃ প্রথম প্রকাশিত নাট্য গ্রন্থ
কী?
উত্তরঃ ঝিলিমিলি (১৩৩৭)। এই গ্রন্থে মোট
তিনটি নাটক আছে।

প্রশ্নঃ নজরুলের প্রথম বাজেয়াপ্ত গ্রন্থের নাম কী?
উত্তরঃ বিষের বাঁশী (প্রকাশ: আগষ্ট ১৯২৪ বাজেয়াপ্ত: ২৪ অক্টোবর ১৯২৪)।

প্রশ্নঃ নজরুলের মোট কয়টি গ্রন্থ বাজেয়াপ্ত হয়, কী কী?
উত্তরঃ ৫টি। বিশের বাঁশী, ভাঙার গান, প্রলয় শিখা,
চন্দ্রবিন্দু, যুগবাণী।

প্রশ্নঃ জেলে বসে লেখা জবানবন্দির
নাম কী?
উত্তরঃ রাজবন্দির জবানবন্দি।
রচনার তারিখ: ৭/১/১৯২৩

প্রশ্নঃ ‘দারিদ্র্য’ কবিতাটি নজরুল ইসলামের কোন
কাব্যের অন্তর্গত?
উত্তরঃ সিন্ধু হিন্দোল কাব্যের।

প্রশ্নঃ কোন কবিতা রচনার জন্য কাজী
নজরুল ইসলামের ‘অগ্নিবীনা’ কাব্য নিষিদ্ধ
হয়?
উত্তরঃ রক্তাম্বরধারিনী মা।

প্রশ্নঃ ‘বিদ্রোহী’ কবিতাটি কবি নজরুল ইসলামের
কোন কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত?
উত্তরঃ অগ্নি-বীণা।

প্রশ্নঃ অগ্নি-বীণা কাকে উৎসর্গ করা
হয়?
উত্তরঃ বিপ্লবী বারীন্দ্রকুমার ঘোষকে।

প্রশ্নঃ অগ্নি-বীণার প্রথম কবিতা
কোনটি?
উত্তরঃ প্রলয়োল্লাস।

প্রশ্নঃ নজরুলের কোনটি পত্রোপন্যাসের পর্যায়ভুক্ত?
উত্তরঃ বাঁধনহারা।

প্রশ্নঃ বঙ্গবন্ধু সরকার কর্তৃক রাষ্ট্রীয় অতিথি হিসেবে নজরুলকে কলকাতা থেকে ঢাকায় আনায়ন করা হয় কত সালে?
উত্তরঃ ১৯৭২-এর ২৪ মে।

প্রশ্নঃ কবির বিখ্যাত কাব্যগ্রন্থগুলো কী কী?
উত্তরঃ ‘অগ্নি-বীণা’ (১৯২২), বিষের বাঁশি (১৯২৪),
ভাঙার গান (১৯২৪), সাম্যবাদী (১৯২৫), সর্বহারা (১৯২৬), ফণি-মনসা (১৯২৭), জিঞ্জির
(১৯২৮), সন্ধ্যা (১৯২৯), প্রলয় শিখা (১৯৩০)ইত্যাদি।

প্রশ্নঃ জবিনী কাব্যগুলো কী কী?
উত্তরঃ ‘চিত্তনামা’ (১৯২৫) ও মরু-ভাস্কর (১৯৫০)।

প্রশ্নঃ চিত্তনামা ও মরু-ভাস্কর কার জীবনভিত্তিক কাব্য?
উত্তরঃ চিত্তনামা : দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ:
মরু-ভাস্কর: হয়রত মুহম্মদ।

প্রশ্নঃ হযরত মুহাম্মদ (সঃ) এর জীবনী গ্রন্থ
কোনটি?
উত্তরঃ মরু ভাস্কর।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলামের উপন্যাসগুলোর নাম
উল্লেখ কর।
উত্তরঃ ‘বাঁধনহারা’ (১৯২৭), মৃত্যুক্ষুধা (১৯৩০) ও
কুহেলিকা (১৯৩১)।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত গল্পগ্রন্থগুলোর নাম কর।
উত্তরঃ ব্যথার দান (১৯২২), রিক্তের বেদন (১৯২৫),
শিউলিমালা (১৯৩১)।

প্রশ্নঃ সংগীত বিষয়ক গ্রন্থাবলীর উল্লেখ কর।
উত্তরঃ চোখের চাতক, নজরুল গীতিকা,
সুর সাকী, বনগীতি প্রভৃতি।

প্রশ্নঃ তাঁকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ও ভারত
সরকার কর্তৃক কোন কোন পদক দেয়া
হয়?
উত্তরঃ যথাক্রমে জগত্তারিণী স্বর্ণপদক (১৯৪৫) ও
পদ্মভূষণ (১৯৬০) পদক দেয়া হয়।

প্রশ্নঃ ডি-লিট পদক ‘রবীন্দ্রভারতী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কখন দেয়া হয়?
উত্তরঃ যথাক্রমে ১৯৬৯ সাল ও ১৯৭৪ সালে।
বাংলাদেশ সরকার ‘একুশে পদক’ দেন
১৯৭৬ সালে।

প্রশ্নঃ বিবিসির বাংলা বিভাগ কর্তৃক
জরিপকৃত (২০০৪) সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালির তালিকায় নজরুলের স্থান কত?
উত্তরঃ তৃতীয়।

প্রশ্নঃ বাল্যকাল তিনি কী নামে পরিচিত ছিলেন?
উত্তরঃ দুখু মিয়া।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলাম কী নামে
খ্যাত?
উত্তরঃ বিদ্রোহী কবি।

প্রশ্নঃ বাংলা ভাষায় কে প্রথম ইসলামী গান ও
গজল রচনা করেন?
উত্তরঃ কাজী নজরুল ইসলাম।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলাম ১৯১৭
সালে কত নং বাঙালি পল্টনে যোগ দেন।
উত্তরঃ ৪৯ নং

প্রশ্নঃ আদালতে প্রদত্ত কবি নজরুলের
রচনার নাম কী?
উত্তরঃ রাজবন্দীর জবানবন্দি

প্রশ্নঃ ১৯৩৩ সালে প্রকাশিত
‘বিষের বাঁশী’ কাব্যগ্রন্থ কার নামে উৎসর্গ করেন।
উত্তরঃ মিসেস এম রহমান

প্রশ্নঃ ‘চন্দ্রবিন্দু’ কাজী নজরুল ইসলামের কোন
ধরনের রচনা?
উত্তরঃ গল্প

প্রশ্নঃ ‘ভাঙ্গার গান’ কাজী নজরুল ইসলামের কোন
ধরনের রচনা?
উত্তরঃ কাব্যগ্রন্থ।

প্রশ্নঃ আবুল মনসুর আহমদ এর কোন গ্রন্থে কাজী নজরুল ইসলাম ভূমিকা রচনা করেছেন?
উত্তরঃ আয়না

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলাম সম্পাদিত
তিনটি পত্রিকার নাম কী?
উত্তরঃ ধূমকেতু (১৯২২), লাঙ্গল (১৯২৫), দৈনিক
নবযুগ (১৯৪১)

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলামের তিনটি নাটকের নাম
করুন।
উত্তরঃ ঝিলমিলি, আলেয়া, পুতুলের
বিয়ে

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলামের ‘অগ্নি-বীণা’ কাব্যের প্রথম কবিতাটি কোনটি?
উত্তরঃ প্রলয়োল্লাস।

প্রশ্নঃ ১৯৩০ সালে কোন কবিতার জন্য নজরুল
ইসলাম ৬ মাসের জন্য কারাবরণ করেন?
উত্তরঃ প্রলয় শিখা

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলামের প্রেমমূলক রচনা কোনটি?
উত্তরঃ শিউলীমালা

প্রশ্নঃ ‘সাম্যবাদী’ কাজী নজরুলের কোন জাতীয়
রচনা? কত সালে কোথায় প্রথম প্রকাশিত হয়?
উত্তরঃ কবিতা, ১৩৩২ বঙ্গাব্দে ১লা পৌষ ‘লাঙ্গল’
পত্রিকায় প্রথম প্রকাশিত হয়।

প্রশ্নঃ ‘আমি সৈনিক’ রচনাটি কবি নজরুল ইসলামের
কোন গ্রন্থের অন্তর্ভূক্ত।
উত্তরঃ দুর্দিনের যাত্রী।

প্রশ্নঃ কত সলে কবি নজরুলকে
বাংলাদেশের নাগরিকত্ব প্রদান করা হয়?
উত্তরঃ ১৯৭৪ সালে।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলামের প্রথম কাব্যগ্রন্থের
নাম কী এবং কত সালে প্রকাশিত হয়?
উত্তরঃ অগ্নিবীণা, ১৯২২ সালে প্রকাশিত হয়।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলামের দুটি অনুবাদ গ্রন্থের
নাম করুন।
উত্তরঃ রুবাইয়াৎ-ই-হাফিজ (১৯৩০) ও রুবাইয়াৎ-ই-
ওমর খৈয়াম (১৯৬০)।

প্রশ্নঃ এ পর্যন্ত কাজী নজরুল ইসলামের প্রকাশিত
গ্রন্থের সংখ্যা কত?
উত্তরঃ ৫১টি

প্রশ্নঃ কাজী নজরুল ইসলাম রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে কোন গ্রন্থটি উৎসর্গ করেন?
উত্তরঃ সঞ্চিতা।

প্রশ্নঃ কাজী নজরুলের ‘সাম্যবাদী’ কবিতাটি প্রথম
কোন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়?
উত্তরঃ লাঙ্গল।

প্রশ্নঃ নজরুল সাহিত্যের লক্ষণীয় বৈশিষ্ট্য কী?
উত্তরঃ সংস্কার ও বন্ধন মুক্তি

প্রশ্নঃ কত সালে কাজী নজরুল ইসলাম আশালতা সেন গুপ্তার সাথে বিবাহ বন্ধনে আবন্ধ হন?
উত্তরঃ ১৯২৪ সালে

প্রশ্নঃ ১৯২২ সালে ধূমকেতুর শারদীয় সংখ্যায়
কী কী প্রকাশের জন্য কাজী নজরুল ইসলামকে এক বৎসর কারাবণ করতে হয়?
উত্তরঃ আনন্দময়ীর আগমনে কবিতা এবং ‘বিদ্রোহীর কৈফিয়াৎ’ প্রকাশের জন্য।

প্রশ্নঃ কত সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কবি নজরুলকে ডক্টরেট উপাধি প্রদান করে?
উত্তরঃ ১৯৭৪ সালে

প্রশ্নঃ নজরুল ইসলামের কবিতা সর্বপ্রথম কোন
পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।
উত্তরঃ বঙ্গীয় মুসলিম সাহিত্য পত্রিকায়।

প্রশ্নঃ বাংলা একাডেমী প্রাঙ্গণে দুটি বৃক্ষ আছে।
তার একটি রবীন্দ্রনাথের নামে অপরটি কার নামে?
উত্তরঃ কাজী নজরুল ইসলামের নামে।

প্রশ্নঃ ‘যাকে হাত দিয়ে মালা দিতে
পার নি’- এই বিখ্যাত গানের চরণটি নজরুল কাকে
উদ্দেশ্য করে রচনা করেছেন?
উত্তরঃ নার্গিসকে।

প্রশ্নঃ নার্গিসের বাড়ি কোথায়?
উত্তরঃ কুমিল্লা জেলার দৌলতপুরে।

প্রশ্নঃ নজরুল ইসলামের রচনা দুটো ঐতিহ্য একই
মিলন মোহনায় এসে মিসেছে। ঐতিহ্য দুটো কী?
উত্তরঃ মুসলিম ঐতিহ্য এবং হিন্দু ঐতিহ্য।

প্রশ্নঃ মুসলিম ও হিন্দু এতিহ্যকে একীভূত করার
উদ্দেশ্যে তিনি তাঁর ছেলের নাম কী রাখেন?
উত্তরঃ কৃষ্ণ-মোহাম্মদ

প্রশ্নঃ নজরুল মায়ের মত সম্মান করতো কোন
মহিলাকে?
উত্তরঃ বিরজা সুন্দরী নামে কুমিল্লার এক হিন্দু মহিলাকে।

প্রশ্নঃ তিনি মৃত্যুবরণ করেন কবে?
উত্তরঃ ২৯ আগষ্ট, ১৯৭৬; ১২ ভাদ্র ১৩৮৩ বঙ্গাব্দ।

➡️সংকলন-মোস্তাফিজার মোস্তাক 

Check Also

বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত উক্তি ও প্রবক্তা

বাংলা সাহিত্যের বিখ্যাত উক্তি ও প্রবক্তা 📒রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১। ‘আজি হতে শত বর্ষে পরে কে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *